শনিবার ২৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৬শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

যুবদল নেতা গ্রেপ্তার, সংঘর্ষে রণক্ষেত্র সোনাগাজী

প্রকাশঃ ০৩ জানুয়ারি, ২০১৬

যুবদল নেতা গ্রেপ্তার, সংঘর্ষে রণক্ষেত্র সোনাগাজী

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় দুই ডজন মামলার আসামি এক যুবদল নেতাকে আটকের পর পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসীর ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় মতিগঞ্জ ইউনিয়নের ভাদাদিয়া গ্রামে এ ঘটনায় মতিগঞ্জ ইউনিয়ন যুবদল নেতা আলি আহম্মদ, তার দুই ছেলেসহ চারজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

এছাড়া চার পুলিশ সদস্যও আহত হন বলে পুলিশ দাবি করছে।

গুলিবিদ্ধ অবস্থায় যুবদল নেতা ও সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য আলি আহম্মদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোনাগাজী মডেল থানার ওসি মো. হারুন উর রশিদ জানান, মতিগঞ্জ ইউনিয়ন যুবদলের সাবকে সভাপতি আলি আহম্মেদের বিরুদ্ধে ফেনী ও সোনাগাজী থানায় ২৩টি মামলা রয়েছে, যার মধ্যে ১৩টি মামলায় আছে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা।

“গোপন সংবাদ পেয়ে সন্ধ্যায় পুলিশ মতিগঞ্জ ইউনিয়নের ভাদাদিয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে তার বাড়ির পাশে ধানক্ষেত থেকে আলি আহম্মদকে গ্রেপ্তার করে।

“গ্রেপ্তারের পর পুলিশ বহনকারী সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে তাকে থানায় নিয়ে যাওয়ার সময় আলি আহম্মেদের স্বজন ও গ্রামবাসী পুলিশের উপর হাতবোমা ছোড়ে ও ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে।”

ওসি বলেন, আত্মরক্ষার্থে পুলিশ গুলি ছোড়ে। ওই সময় পুলিশের গাড়ি থেকে পালানোর সময় আলি আহম্মদ গুলিবিদ্ধ হন।

পরে থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ২৫ রাউন্ড শটগানের গুলি ছুড়লে আলি আহম্মেদের দুই ছেলেসহ আরও তিনজন গুলিবিদ্ধ হয় বলে জানান ওসি।

গুলিবিদ্ধ আলি আহম্মদের দুই ছেলে মোহাম্মদ বাবলু (১৮) ও হৃদয় (১৩) এবং শরিফ উল্যাহ ফরহাদকে (১৬) ফেনী জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এছাড়া আলি আহম্মদকে গ্রেপ্তার করে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পুলিশ পাহাড়ায় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ওসি আরও জানান, গ্রামবাসীর হামলায় এসআই নাসির আহম্মেদ, এএসআই মনিরুল ইসলাম, কনস্টেবল আবদুল ওহাব ও কনস্টেবল মুসলিম উদ্দিন আহত হয়েছেন।

তাদের সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

ওসি হারুন উর রশিদ জানান, পুলিশের কাজে বাধাদান, হাতবোমা বিস্ফোরণ ও পুলিশ বহনকারী গাড়ি ভাংচুর করায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে।