শনিবার ২২শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৯শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

বিজয় এক্সপ্রেসের যাত্রাবিরতিতে উচ্ছ্বসিত আখাউড়াবাসী

প্রকাশঃ ০৭ জানুয়ারি, ২০১৬

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে অবশেষে আখাউড়া রেলওয়ে জংশনে যাত্রাবিরতি শুরু করেছে ময়মনসিংহ-চট্টগ্রাম-ময়মনসিংহ রুটে চলাচলকারী আন্তঃনগর বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেন। বৃহস্পতিবার থেকে ট্রেনটি আখাউড়ায় যাত্রাবিরতি কার্যক্রম শুরু করে।

বিজয় এক্সপ্রেসের যাত্রাবিরতিকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে আখাউড়া রেলওয়ে জংশনে এসে ভিড় জমাতে থাকেন স্থানীয় এলাকাবাসী ও যাত্রীরা।

চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনটি দুপুর পৌনে ১২টায় আখাউড়া রেলওয়ে জংশনে এসে পৌঁছায়। এসময় আখাউড়া পৌরসভার নব-নির্বাচিত মেয়র মো. তাকজিল খলিফা কাজলসহ স্থানীয় এলাকাবাসী ট্রেনের যাত্রীদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান এবং মিষ্টিমুখ করিয়ে বরণ করে নেন।এসময় আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ নেতাকর্মী ও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

আখাউড়া পৌরসভার মেয়র মো. তাকজিল খলিফা কাজল সোনাার বাংলা ৭১ডটকমকে জানান, আখাউড়া পৌরবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল বিজয় এক্সপ্রেসের যাত্রাবিরতি দেয়া। অবশেষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ (কসব-আখাউড়া) আসনের সংসদ সদস্য ও আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হকের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আখাউড়া রেলওয়ে জংশনে বিজয় এক্সপ্রেসের যাত্রাবিরতি শুরু হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে আখাউড়াবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ হয়েছে।

রেলওয়ে স্টেশনে অবস্থানরত যাত্রীরা সোনাার বাংলা ৭১ডটক জানান, বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনটি আখাউড়ায় যাত্রাবিরতির জন্য আমাদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল। ট্রেনটির যাত্রাবিরতির মধ্য দিয়ে আমাদের দীর্ঘদিনের দাবি পূরণ হয়েছে। এর ফলে এখন থেকে আমরা খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে আখাউড়া থেকে গুরুত্বপূর্ণ কাজে চট্টগ্রাম ও ময়মনসিংহ পৌঁছাতে পারবো।

উল্লেখ্য, আন্তঃনগর বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনটি প্রতিদিন সকাল ৭টা ২০ মিনিটে চট্টগ্রাম থেকে ময়মনসিংহের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে, ট্রেনটি আখাউড়ায় পৌঁছাবে দুপুর ১২টা ৫ মিনিটে। অপরদিকে, ময়মনসিংহ থেকে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রাত ৮টায় ছেড়ে এসে রাত সাড়ে ১২টায় আখাউড়া পৌঁছাবে। এছাড়া প্রতি বুধবার ট্রেনটি সাপ্তাহিক বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।