শনিবার ২২শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৯শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

বাংলাদেশ এগিয়ে রয়েছে ৩-১ গোলের ব্যবধানে।

প্রকাশঃ ০৮ জানুয়ারি, ২০১৬

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ব্যর্থতা ভুলতে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপকেই মিশন হিসেবে ধরার পরিকল্পনা নিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল দল। সে লক্ষ্যে উদ্বোধনী ম্যাচে যশোরের শামস-উল হুদা স্টেডিয়ামে শ্রীলংকার মুখোমুখি মারুফুল হকের শিষ্যরা। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী-ই শুরু করলো বলা যায় বাংলাদেশ। পৌনে তিনটায় শুরু হওয়া ম্যাচটির প্রথমার্ধ শেষে বাংলাদেশ এগিয়ে রয়েছে ৩-১ গোলের ব্যবধানে।

ম্যাচের শুরু থেকেই উজ্জীবিত ফুটবল খেলতে থাকে বাংলাদেশের ফুটবলাররা। যার ধারাবাহিকতায় ১৬তম মিনিটেই প্রথম গোলের সাক্ষাৎ পেয়ে যায় টিম বাংলাদেশ। জাহিদের পাস থেকে বল পেয়ে যান শাখাওয়াত হোসেন রনি। শ্রীলংকার গোলরক্ষক এবং একজন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে বলটি জালে জড়াতে মোটেও কষ্ট করতে হয়নি রনিকে।

তবে চার মিনিটও লিড ধরে রাখতে পারলো না মারুফুল হকের শিষ্যরা। খেলার ২০ মিনিটেই গোল শোধ করে দেয় শ্রীলংকা। গোল শোধ করার ক্ষেত্রে অবশ্য অবদানটা বাংলাদেশের নাসিরের। ডি বক্সের ভেতর লংকান খেলোয়াড় ম্যাডিসন সিলভাকে ফেলে দেন তিনি। রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজালে স্পট কিক নেন ম্যাডিসন সিগুয়াগ্ধো। বল জাড়িয়ে যায় জালে।

লংকানদের আনন্দ স্থায়ী হলো মাত্র ২ মিনিট। খেলার ২২ মিনিটেই আবার লিড নিয়ে নেয় বাংলাদেশ। এবার অধিনায়ক মামুনুলের মাপা কর্ণার কিক থেকে ভেসে আসা বলে হেড করেন জাহিদ হোসেন। বল জটলার মধ্যে পড়লেও লংকান ডিফেন্ডাররা সেটা ফেরাতে ব্যর্থ। ফলে বল জড়িয়ে যায় সফরকারীদের জালে।

খেলার ৪২ মিনিটে আবারও লিড বাড়িয়ে নিলো বাংলাদেশ দলের ফুটবলাররা। এবার গোলদাতা জীবন। জাহিদের পাস থেকে ডান পায়ের দারুন এক শটে গোলটি করেন জীবন। শেষ পর্যন্ত ৩-১ গোলের ব্যবধান নিয়েই বিরতিতে গেলো বাংলাদেশ দলের ফুটবলাররা।