মঙ্গলবার ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২২শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

মাগুরায় আহত আ. লীগকর্মীর মৃত্যু

প্রকাশঃ ১৭ জানুয়ারি, ২০১৬

পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে বিরোধের সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে মাগুরায় আহত এক স্থানীয় আওয়ামী লীগকর্মীর মৃত্যু হয়েছে।

নিহত আবদুল মাজেদ সরদার (৫৫) সাজিয়াড়া সলুয়াপাড়া গ্রামের মৃত হামেদ সরদারের ছেলে।

মাগুরা পৌর এলাকার সাজিয়াড়া সলুয়াপাড়ায় বৃহস্পতিবার রাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মাজেদ আহত হন। শনিবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

মাজেদের মৃত্যুর পর শনিবার রাতে এক বিএনপিকর্মীর বাড়িতে আগুন দেয় এলাকাবাসী। তবে দমকলকর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিভিয়ে ফেলায় তেমন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি।

শফিউল ইসলামসহ কয়েকজন গ্রামবাসী জানান, মাগুরা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা জামির হোসেন মাগুরা পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিল পদে নির্বাচন করেন।

তার পক্ষে সাজিয়াড়া গ্রামের হুমায়ুন ও আয়ুব হোসেনের নেতৃত্বে স্থানীয় বিএনপির বেশকিছু কর্মী নির্বাচনী কাজে অংশ নেন বলে জানান শফিউল।

তিনি বলেন, ওই কারণে স্থানীয় বিএনপিকর্মী হুমায়ুন ও ওই গ্রামের বাসিন্দা বিএনপিকর্মী আবদুল মান্নানের মধ্যে বিরোধের সৃষ্টি হয়।

শফিউল বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে হুমায়ুন, আইয়ুব হোসেনসহ স্থানীয় বিএনপির একটি অংশ জামিরের আত্মীয়ের বাড়িতে দাওয়াতে যান।

“সেখানে আবদুল মান্নানের সঙ্গে তাদের কথা কাটাকাটি থেকে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়।

“ওই সময় তাদের বিবাদ মেটাতে গিয়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আবদুল মাজেদ সরদার গুরুতর আহত হন।”

তাকে প্রথমে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে সেখান থেকে শুক্রবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

মাগুরা সদর থানার ওসি জানান, মাজেদের মৃত্যুর খবর পৌঁছানোর পর থেকেই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

আবদুল মাজেদের পক্ষের লোকজন শনিবার রাতে মোশারফ নামে স্থানীয় এক বিএনপিকর্মীর বাড়ির পাটকাঠির বেড়ায় আগুন ধরিয়ে দেয়।

দ্রুত দমকলকর্মীরা গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনায় তেমন ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলে জানান তিনি।

পুলিশ সুপারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। বর্তমানে এলাকার পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে সোনার বাংলা৭১.কমকে জানান ওসি।