বৃহস্পতিবার ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৪শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

লঞ্চে ছিনতাইয়ের পর ‘ধর্ষণের চেষ্টা’, অস্ত্রসহ আটক ৪

প্রকাশঃ ১৮ জানুয়ারি, ২০১৬

চাঁদপুরের মেঘনা নদীতে লঞ্চে এক নারীকে মারধর ও ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে চার যুবককে অস্ত্রসহ আটক করে পুলিশে দিয়েছে কর্মচারীরা।

রোববার রাতে ঢাকা থেকে মাদারীপুরগামী এমভি পারাবাত-১৪ লঞ্চে এ ঘটনা ঘটে বলে চাঁদপুর নৌ-পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বি এম নুরুজ্জামান জানান।

আটকরা হলেন সাব্বির (১৯), এমরান (২৩), রজ্জব (১৯) ও সুজন (২২) । তাদের বাড়ি ঢাকার কেরানীগঞ্জের পোস্তগোলা এলাকায়।

এএসপি নুরুজ্জামান বলেন, সোহেল নামের এক যুবক রোববার রাতে তার ‘বান্ধবীকে’ নিয়ে ওই লঞ্চে করে ঢাকা থেকে মাদারীপুরে যাচ্ছিলেন।

“রাত আনুমানিক সাড়ে ৯টার দিকে চার যুবক এসে সোহেল ও তার বান্ধবীকে মারধর করে টাকা-পয়সা ও মোবাইল ফোন লুটে নেয়। এরপর তারা সোহলকে কেবিন থেকে বের করে দিয়ে তার বান্ধবীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে।”

এ সময় সোহেলের চিৎকারে লঞ্চ কর্মচারী ও যাত্রীরা ছুটে এসে তাদের উদ্ধার করে চার যুবককে আটকে রাখে। রাত ১টায় চাঁদপুর টার্মিনালে লঞ্চ থামিয়ে চারজনকে তুলে দেওয়া হয় নৌ পুলিশের হাতে। পরে তাদের চাঁদপুর সদর মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয় বলে এএসপি জানান।

তিনি বলেন, আটক যুবকদের কাছে থেকে দেশে তৈরি একটি রিভলবার, দুটি গুলি ও মাদক উদ্ধার করা হয়েছে।

চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মো. মামুনুর রশীদ জানান, সোমবার ভোরে চাঁদপুর নৌ-পুলিশের এসআই মোশারেফ হোসেন চার যুবকের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা করে থানায় হস্তান্তর করেছেন।

সোহেল ও তার ‘বান্ধবীকে’ও থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

সোহেল পুলিশকে বলেছেন, তারা দুজনই কেরানীগঞ্জের একটি পোশাক কারখানায় কাজ করেন। তারা গ্রামের বাড়ি মাদারীপুর যাচ্ছিলেন।