রবিবার ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২০শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

স্বামী-স্ত্রীর খুনে মা-ছেলের ফাঁসির আদেশ

প্রকাশঃ ২১ জানুয়ারি, ২০১৬

গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলায় স্বামী-স্ত্রী খুনের ঘটনায় ওই এলাকার ছেলেসহ এক নারীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ এবং আরও দুজনকে যাবদজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

বুধবার বিকালে গাজীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক একেএম এনামুল হক আনোয়ারা বেগম (৪৫) ও তার ছেলে মোস্তফাকে (২৭) মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন।

এছাড়া মো. রহমত আলী রমু (৫০) ও তার মেয়ে রহিমা বেগমকে (২৩) জরিমানাসহ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

গাজীপুর আদালতের পরিদর্শক মো. রবিউল ইসলাম বলেন, ২০১১ সালের ১৩ নভেম্বর দুপুরে কাপাসিয়া থানার সম্মানিয়া নয়াপাড়ায় মো. সুরুজ আলী তার বাড়ির পাশের মেহগনি বাগানের পরিচর্চা করছিলেন।

“এ সময় দণ্ডিতরা দা-শাবলসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বাগানে গিয়ে তার কাজে বাধা দেয়। তাদের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে বিরোধ চলে আসছিল।

“তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে রহমত আলী রমু, তার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম ও তাদের ছেলে মোস্তফা দা দিয়ে কুপিয়ে ও শাবল দিয়ে সুরুজ আলীকে গুরুতর জখম করেন।

“খবর পেয়ে সুরুজ আলীর স্ত্রী হনুফা স্বামীকে রক্ষার জন্য ঘটনাস্থলে এগিয়ে গেলে দণ্ডিতরা হনুফাকেও দা ও শাবল দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে গুরুতর জখম করেন।”

সুরুজ আলী ঘটনাস্থলে এবং তার স্ত্রী হনুফা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় একদিন পর মারা যান।

এ ঘটনায় নিহত সুরুজের ভাই মো. শাহজাহান শেখ পরদিন কাপাসিয়া থানায় হত্যা মামলা করেন।

দণ্ডিতদের মধ্যে যাবজ্জীবনপ্রাপ্ত রহিমা বেগম পলাতক রয়েছেন। বুধবার অপর তিন আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করা হয়।

রাষ্ট্রপক্ষে পিপি মো. হারিছ আহম্মদ এবং আসামিপক্ষে ওয়াহিদুজ্জামান আকন তমিজ মামলা পরিচালনা করেন।