শনিবার ২৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৬শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

শরীয়তপুরে মাটি খুঁড়ে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, স্বামী আটক

প্রকাশঃ ২২ জানুয়ারি, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নিখোঁজের ১৭ দিনের মাথায় শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলা থেকে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে, যাকে হত্যার পর লাশ মাটিতে পুঁতে রাখা হয়েছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত শারমিন (২৫) উপজেলার মধ্য মাছুয়াখালী গ্রামের বিল্লাল লস্করের স্ত্রী এবং মাদারীপুরের কালকিনী উপজেলার কানুরগাও মোল্লাকান্দি গ্রামের মৃত শাহ আলম চৌকিদারের মেয়ে। ৫ জানুয়ারি রাত থেকে নিখোঁজ ছিলেন তিনি।

গোসাইরহাট থানার ওসি মোফাজ্জেল হোসেন জানান, শুক্রবার সকালে উপজেলার মধ্য মাছুয়াখালী গ্রাম থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

“এর আগে হত্যায় জড়িত অভিযোগে নিহতের স্বামী বিল্লালকে বৃহস্পতিবার রাতে আটক করে পুলিশ।”

শারমিনকে ‘গলা টিপে হত্যা’র পর লাশ পুঁতে রাখার কথা বিল্লাল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা মোফাজ্জেল।

সোনারবাংলা ৭১. কমকে তিনি বলেন, পাঁচ বছর আগে শারমিনের সঙ্গে বিল্লালের বিয়ে হয়। গত দুই বছর ধরে শারমিন পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছে সন্দেহে তাদের মধ্যে কলহ চলছিল।

তাদের এ সমস্যা নিয়ে গ্রামে একাধিক বার শালিসও হয়েছে জানিয়ে ওসি বলেন, “৫ জানুয়ারি তারিখ রাত থেকে শারমিন নিখোঁজ হন। এরপর থেকে বিল্লালকেও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না।”

এ ঘটনায় ১১ জানুয়ারি শারমিনের মা বিল্লালকে আসামি করে গোসাইরহাট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

“এরপর অভিযান চালিয়ে বৃহস্পতিবার গোসাইরহাট বাজার থেকে বিল্লালকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে শারমিনকে গলা টিপে হত্যার পর বাড়ি থেকে দেড় কিলোমিটার দূরের একটি শুকিয়ে যাওয়া পুকুরে মাটি চাপা দিয়ে রাখার কথা স্বীকার করে বিল্লাল,” বলেন পুলিশ কর্মকর্তা মোফাজ্জেল।

তিনি বলেন, তার দেওয়া তথ্যে পুলিশ ওই স্থান থেকে সকালে শারমিনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

এ ঘটনায় আরও কেউ জড়িত আছে কিনা তা তদন্ত করে দেখা হবে বলেসোনারবাংলা ৭১. কমকে জানান ওসি।