সোমবার ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

সিডনি থান্ডার্স বিগ ব্যাশে চ্যাম্পিয়ন

প্রকাশঃ ২৪ জানুয়ারি, ২০১৬

ফাইনালের জমজমাট লড়াই শেষে মেলবোর্নের করা ১৭৬ রানের লক্ষ্য ৩ বল এবং ৩ উইকেট হাতে রেখেই পার করে ফেলে সিডনি থান্ডার্স। বিগ ব্যাশ লিগের ফাইনালে মুখোমুখি মেলবোর্ন স্টারস এবং সিডনি থান্ডার্স হলেও লড়াইটা ছিল দুই ভাইয়ের মাঝেও। কারণ সিডনি থান্ডার্সের অধিনায়ক মাইক হাসি আর প্রতিপক্ষ মেলবোর্ন স্টার্সের অধিনায়ক ডেভিড হাসি। শেষ পর্যন্ত ছোট ভাইকে হারিয়ে শেষ হাসি হাসলো বড় ভাই।

মেলবোর্ন স্টার্সের দেয়া ১৭৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দুর্দান্ত সূচনা পায় সিডনি থান্ডার্স। দুই ওপেনার উসমান খাজা এবং জ্যাক ক্যালিস ৮৬ রানের দারুন এক জুটি গড়ে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান। এক প্রান্তে ঝড় তোলেন অস্ট্রেলিয়া দলের টেস্ট স্পেশালিষ্ট খ্যাত উসমান খাজা। মাত্র ৪০ বলে ৭০ রানের দানবীয় ইনিংসে মেলবোর্ন স্টার্সের ১৭৭ রানকে মামুলী বানিয়ে দেন। তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন ক্যালিস। ২৭ বলে ২৮ রান করেন এই প্রোটিয়া।

সিডনি থান্ডার্সের দারুন শুরুর পর ক্যালিস এবং ওয়াটসনের উইকেট তুলে ম্যাচে ফিরে আসে মেলবোর্ন স্টার্স। এরপর খাজাকে তুলে নিলে কিছুটা চাপে পরে তারা; কিন্তু শেষ দিকে এইডেন ব্লিজার্ড এবং ক্রিস হার্টলির ছোট দুটি ইনিংসে জয় নিশ্চিত হয় তাদের। শেষ পর্যন্ত তিন বল বাকি থাকতেই জয় নিশ্চিত করে তারা। মেলবোর্ন স্টার্সের পক্ষে মার্কাস স্টইনিস ৩০ রানে ৩টি উইকেট পান। এছাড়া অ্যাডাম জাম্পা নেন দুই উইকেট।এর আগে মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টস জিতে মেলবোর্ন স্টার্সকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান সিডনি থান্ডার্সের অধিনায়ক মাইক হাসি। ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই মার্কাস স্টোইনিজের উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে মেলবোর্ন। তবে লুক রাইট এবং কেভিন পিটারসেনের ব্যাটে ভর করে ঘুরে দাঁড়ায় মেলবোর্নের দলটি। পিটারসেন যে বড় রেসের ঘোড়া, সেটা বিগ ব্যাশের ফাইনালে এসেও প্রমাণ করে দিলেন তিনি।

২৩ রান করে লুক রাইট আউট হয়ে গেলেও এক প্রান্ত আগলে রেখে ঝড় তুলতে থাকেন পিটারসেন। এক প্রান্তে নিয়মিত বিরতিতে একের পর এক উইকেট পড়তে থাকলেও অপরপ্রান্তে মেলবোর্নকে টানতে থাকেন পিটারসেন। শেষ পর্যন্ত সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক নিজের নামের পাশে লিখলেন ৩৯ বলে ৭৪ রানের এক ঝড়ো ইনিংস। ৪টি বাউন্ডারির সঙ্গে ৫টি ছক্কা মারেন তিনি। পিটারসেন ছাড়া দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৩ রান আসে লুক রাইটের ব্যাট থেকে। এছাড়া অধিনায়ক ডেভিড হাসি করেন ২১ এবং ইভান গুলবিস করেন ১৬ রান।

সিডনি থান্ডার্সের পক্ষে শেন ওয়াটসন এবং ক্রিস গ্রিন ২টি করে উইকেট নেন যথাক্রমে ১৭ ও ৩৭ রানে।