শনিবার ২২শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৯শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

অবৈধ ভিওআইপির দায়ে বন্ধ হয়েছে ১১ লাখ সিম

প্রকাশঃ ২৫ জানুয়ারি, ২০১৬

জাতীয় সংসদ ভবন থেকে: অবৈধ ভিওআইপির (ভয়েস ওভার ইন্টারনেট প্রটোকল) সঙ্গে জড়িত থাকায় বিভিন্ন অপারেটরের ১১ লাখ ১৮ হাজার ৬৬৪টি মোবাইল সিম বন্ধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে জাতীয় সংসদে প্রশ্ন-উত্তরকালে সরকারদলীয় সদস্য মো. ইসরাফিল আলমের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এ কথা জানান।

সংসদে অবৈধ ভিওআইপি বন্ধে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের কথা তুলে ধরতে গিয়ে প্রতিমন্ত্রী জানান, আন্তর্জাতিক ইনকামিং কলরেট কমানোর কারণে বৈধ পথে কল আদান-প্রদান বেড়েছে।

তিনি জানান, অবৈধ ভিওআইপির বিরুদ্ধে ২০০৭ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত ৩৪৭টি অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। এসব অভিযানের মাধ্যমে ২০১৩ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত বিভিন্ন অপারেটরের ২ লাখ ১৪ হাজার ৭৮৬টি সিম জব্দ করা হয়েছে। এছাড়া সিমবক্স ডিটেকশন সিস্টেমের মাধ্যমে ২০১২ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত ৯ লাখ ৩ হাজার ৮৭৮টি সিম বন্ধ করা হয়েছে।

একই প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, অবৈধ ভিওআইপি প্রতিরোধে বিটিআরসি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন মনিটরিং কমিটির মাধ্যমে টেলিকম সেক্টরে নিয়ন্ত্রণ বৃদ্ধি করেছে। ওই কমিটিতে বিটিআরসিসহ আইন প্রয়োগকারী সংস্থার প্রতিনিধি প্রত্যক্ষভাবে সম্পৃক্ত রয়েছে। ভিওআইপি প্রযুক্তির অপব্যবহার রোধে প্রতিনিয়ত অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। এর পাশাপাশি বিটিআরসি থেকে কিছু লজিক নির্ধারণ করা হয়েছে। যাকে সেলফ রেগুলেশনস পদ্ধতি বলা হয়। যার মাধ্যমে মোবাইল অপারেটরগুলো মনিটরিং করছে। অবৈধ ভিওআইপি রোধে পিএসটিএন এবং আইপিটিএসপি লাইসেন্সধারী অপারেটদের কার্যক্রম গভিরভাবে মনিটারিং করা হচ্ছে।

এছাড়া চলমান বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধনের মাধ্যমে সিমের অবৈধ ব্যবহার কমে আসবে বলেও তারানা হালিম আশা প্রকাশ করেছেন।