বৃহস্পতিবার ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৪শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

তিনবার চেষ্টা করেও মেসিকে দলে টানতে ব্যর্থ হয় রিয়াল

প্রকাশঃ ২৮ জানুয়ারি, ২০১৬

স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে এমনটিই জানা গেছে। সূত্রমতে, ২০১১ সালে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দেওয়ার গুঞ্জনে প্রথমবার মেসির প্রতি আগ্রহ দেখায় রিয়াল। তখন তাদের ইচ্ছা ছিল, রোনালদো ক্লাব ছাড়লে তার জায়গাটা অন্য তারকাকে দিয়ে পূরণ করা।
অতীতে বার্সেলোনার হয়ে খেলা ব্রাজিলিয়ান রোনালদো ও লুইস ফিগো রিয়াল মাদ্রিদের জার্সি গায়ে জড়ান। সুযোগ পেলে নিশ্চয়ই লিওনেল মেসিকেও দলে ভেড়াতে সম্ভাব্য সব কিছুই করবে গ্যালাকটিকোরা। কিন্তু, তিন তিনবার চেষ্টা করেও আর্জেন্টাইন ‍তারকাকে দলে টানতে ব্যর্থ হয় রিয়াল।

এর জের ধরেই মেসির দিকে হাত বাড়ায় লস ব্লাঙ্কসরা। কিন্তু, চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের প্রস্তাবটি এক বাক্যে নাকচ করে দেয় বার্সা।

রোনালদোর কারণেই দ্বিতীয়বার মেসিকে দলে ভেড়াতে উঠেপড়ে লাগে রিয়াল। ২০১৩ সালে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ‘সিআর সেভেন’র থাকা নিয়ে প্রশ্ন জাগে। নতুন চুক্তি সম্পন্নে বিলম্ব করেন পর্তুগিজ তারকা। তখন রোনালদোকে পেতে প্রিমিয়ার লিগ জায়ান্টদের আগ্রহটা ছিল লক্ষণীয়। তার ওপর নেইমারকে দলে ভেড়ানোর দৌড়ে বার্সার কাছে হার মানে রিয়াল।

ওই সময়ে নাকি মেসির প্রতিনিধির সঙ্গে আলোচনায় বসেন রিয়ালের এক সিনিয়র নির্বাহী কর্মকর্তা। তবে, ২০১১ সালের মতোই প্রতিক্রিয়া পায় গ্যালাকটিকোরা। আর সর্বশেষ গত বছর আবারো বার্সা থেকে আর্জেন্টাইন আইকনকে ভাগিয়ে আনার প্রচেষ্টা চালায় রিয়াল। কিন্তু, এবারও প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান!

এদিকে, বার্সায় মেসির উত্তরসুরি যাকে ভাবা হয় তাকে নিয়ে নতুন মিশনে নেমেছে রিয়াল। সাম্প্রতিক সময়ে নেইমারকে বার্নাব্যুতে উড়িয়ে ‍আনতে গ্যালাকটিকোদের তুমুল আগ্রহের বিষয়টি বিশ্বমিডিয়ার বেশ আলোচিত হচ্ছে। অন্যদিকে, কবে থেকেই ব্রাজিলিয়ান সেনসেশনের সঙ্গে কাতালানদের চুক্তি নবায়ন হবে হবে করেও হচ্ছে না!