সোমবার ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

এক নারী টিকাদান কর্মীকে নির্জনে একা পেয়ে কুপ্রস্তাব, অতঃপর…

প্রকাশঃ ৩০ জানুয়ারি, ২০১৬

পরিদর্শনের জন্য এক নারী টিকাদান কর্মীকে নিজের বাড়িতে ডেকে আনেন এক যুবক। টিকাদান শেষে ফেরার পথে নির্জন স্থানে তার পথ আটকায় ওই যুবকটিই। এরপর কুপ্রস্তাব দিয়ে জোর জবরদস্তি শুরু করে। কিন্তু এতে বাধা দিলে ওই স্বাস্থকর্মীর ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে যুবক। পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয়।

শনিবার সকালে এ ঘটনা ঘটেছে ভাণ্ডারিয়া উপজেলোর ধাওয়া গ্রামে। আহত টিকাদান কর্মীকে গুরুতর অবস্থায় প্রথমে ভাণ্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে দুপুরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তার করা হয়।

আহত স্বাস্থকর্মীর নাম ঝুমুর আক্তার(৩০)। তিনি ধাওয়া ইউনিয়ন পরিবার কল্যাণ সহকারী (এফডব্লিউএ) পদে কর্মরত এবং পূর্ব ধাওয়া গ্রামের মহসীন উদ্দিন তালুকদারের স্ত্রী।

অভিযুক্ত বখাটের নাম শাওন খান(২৫)। তিনি একই গ্রাম পূর্ব ধাওয়ার রুহুল আমীন খানের ছেলে ও ৫৯ নম্বর ধাওয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নৈশ প্রহরী কাম দপ্তরি পদে কর্মরত। স্থানীয় ও হাসপাতাল সূত্রমতে, সকালে ঝুমুর আক্তার ধাওয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় টিকাদান কেন্দ্রের কাজ শেষ করলে শাওন খান তাকে তার বাড়ি পরিদর্শনের অনুরোধ করেন। কাজ শেষে ফেরার পথে বাড়ির সামনের নির্জন স্থানে এলে দপ্তরি শাওন খান ওই নারীর পথরোধ করে কুপ্রস্তাব দেন। এরপর তাকে হয়রানি শুরু করেন। ঝুমুর বাধা দিলে শাওন ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে উপর্যুপরি কুপিয়ে জখম করে। এতে তার মাথা ও বাম হাতসহ শরীরের নানা স্থানে গুরুতর জখম হয়।
ভাণ্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, অভিযুক্ত বখাটেকে আটক করা হয়েছে। মামলা করা হচ্ছে।