রবিবার ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২০শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

গলাকাটা শিশুদুটির হত্যায় মামলা হয়নি

প্রকাশঃ ৩০ জানুয়ারি, ২০১৬

টাঙ্গাইল:মুক্তিপণ না পেয়ে মির্জাপুরে গলাকেটে দুই শিশু হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি। লাশ দুটি ময়নাতদন্তের জন্যে টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, গত ২৭ জানুয়ারি দুপুরে শাকিল ও ইমরান মিলে মির্জাপুরের হাড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণীর অনুষ্ঠান দেখতে যায়। সেখান থেকে তারা নিখোঁজ হয়। পরদিন বৃহস্পতিবার বিকেল চারটার দিকে মুঠোফোনে অপহরণকারী পরিচয়ে দুজনের পরিবারের সদস্যের কাছে এক লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। পরদিন শুক্রবার বিকেলে এলাকাবাসী ওই স্থানে শিশুদুটির গলাকাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখে।
শনিবার বিকেল পর্যন্ত লাশ হস্তান্তর কিংবা মামলা দায়ের হয়নি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইনউদ্দিন।
ওসি জানান, শুক্রবার রাতেই লাশ দুটি উদ্ধার করে মির্জাপুর থানায় নিয়ে আসা হয়। তবে এখন পর্যন্ত হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহতদের পরিবারের কেউ মামলা দায়েরের জন্য কেউ যোগাযোগ করেনি।
বেলা ১১টার দিকে ময়নাতদন্তের জন্যে শিশু ইমরান ও শাকিলের লাশ টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।
শাকিল ঢাকার ধামরাই উপজেলার চৌহাট ইউনিয়নের চর চৌহাট (দেলুটিয়া) গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে আর ইমরান একই এলাকার আবু বক্করের ছেলে।
এর আগে গত ২৭ জানুয়ারি ঢাকার ধামরাই থেকে শিশু ইমরান ও শাকিলকে অপহরণ করা হয়। এর দুদিন পর শুক্রবার সন্ধায় পুলিশ মির্জাপুর উপজেলার ভাওড়া ইউনিয়নের কামারপাড়া ময়ুরভাঙ্গা এলাকায় একটি লেবু বাগান থেকে তাদের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে।