শনিবার ২২শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৯শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

ক্রিমিনাল ডাটাবেজ র‌্যাবের উদ্বোধন

প্রকাশঃ ০৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬

দেশের কারাগারে থাকা অপরাধীদের ২০০ ধরনের ব্যক্তিগত তথ্য নিয়ে ক্রিমিনাল ডাটাবেজ তৈরি করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। টাইগার আইটি’র সহযোগিতায় ডাটাবেজ সফটওয়্যারটি তৈরি করা হয়। রোববার র‌্যাব হেড কোয়ার্টার্সে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।
দেশের ৬৮ টি কারাগারের অপরাধীদের ২০০ ধরনের তথ্য, ১০ আঙ্গুলের বায়োমেট্রিক ছাপ এবং দুই চোখের আইরিশ নিয়ে তৈরি করা হয়েছে র্যাব-প্রিজন ইনমেট ডাটাবেজ। এর পরিচালনায় থাকবে র্যা ব ও জেল কর্তৃপক্ষ।
র‌্যাবের অতিরিক্ত মহা-পরিচালক (অপারেশনস) কর্নেল জিয়াউল আহসানের তত্ত্বাবধানে ও ক্রিমিনাল ডাটাবেজের অনুকরণে ডাটাবেজটি তৈরি করা হয়েছে।
র‌্যাব ও কারাগার থেকে দক্ষ অপারেটর তৈরি করা, ৬৮টি কারাগারে ওয়ার্ক স্টেশন পৌঁছানো এবং ৬৮টি জেলে ফাইবার অপটিকস্ ল্যান নেটওয়ার্কের ব্যবস্থার চ্যালেঞ্জ নিয়ে ডাটাবেজটি তৈরি করা হয়েছে। ডাটাবেজ রাখতে প্রয়োজন হবে একটি ওয়ার্কস্টেশন ল্যাপটপ, ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার, আইরিশ স্ক্যানার, ডিজিটাল এসএলআর ক্যামেরা, সফটওয়্যার ও একজন দক্ষ অপারেটর।
ডাটাবেজটিতে দেশের প্রতিটি জেলে প্রবেশকারী, জেল থেকে জামিনে মুক্ত এবং জেল ট্রান্সফারকারী অপরাধীদের ডাটাবেজে সংগৃহীত করা হবে। প্রতিদিন যত সংখ্যক অপরাধী জেল থেকে কোর্ট ভিজিটে এবং সিভিল হাসপাতালে যায়, তার ডাটাবেজও সংগৃহীত করা হবে এখানে।
ডাটাবেজটির মাধ্যমে অপরাধীর জেল ট্রান্সফারের বিষয়ে তার পরিবারের লোকজনকে মোবাইল মেসেজের মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে জানানো হবে।
র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের উপ-পরিচালক মেজর রুম্মান মাহমুদ জানান, কোন অপরাধীকে গ্রেফতারের পর তার পরিচয় শনাক্ত ও অতীত অপরাধ রেকর্ড (পিসিআর) জানতেই অনেক সময় চলে যায়। জিজ্ঞাসাবাদে অপরাধীরা নিজেদের আড়াল করতে মিথ্যা তথ্যও দিয়ে থাকে। মামলার তদন্তের ক্ষেত্রে বিলম্বে এটি অন্যতম একটি বড় কারণ। এই ডাটাবেজে তাদের সত্যিকার তথ্য পাওয়া যাবে। র‌্যাবের এই ডাটাবেজ জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) ও পাসপোর্ট অধিদফতরের সঙ্গে সংযুক্ত রয়েছে।
রুম্মান মাহমুদ আরো জানান, সম্পূর্ণ ডিজিটাল ফরম্যাটে প্রস্তুত এই ডাটাবেজ অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।
ডাটাবেজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্তী আসাদুজ্জামান খান কামাল, আইজি প্রিজন ব্রি. জে. সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন, বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের মহাপরিচালক বি. জে. মো. মাসুদ রেজওয়ান প্রমুখ।