মঙ্গলবার ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২২শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

মা ইলিশ সংরক্ষণের সময়সীমা ২২ দিন করা হচ্ছে

প্রকাশঃ ০৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬

মা ইলিশ সংরক্ষণের সময়সীমা ১৫ দিন থেকে বাড়িয়ে ২২ দিন করার সুপারিশ করেছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। এ ব্যাপারে মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।
রোববার (০৭ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত মৎস ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এই সুপারিশ করা হয়।
ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ত করতে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী কর্তৃক সকল সংসদ সদস্যের বরাবর ডিও-লেটার দেওয়ার বিষয়েও সুপারিশ করেছে কমিটি।
প্রানিসম্পদ অধিদপ্তরের অধীনে কেন্দ্রীয় ঔষাধাগার থেকে চাহিদা মোতাবেক কেন্দ্রীয় ভেটেরিনারি হাসপাতালে যন্ত্রপাতি ও ঔষধ সরবরাহ করা হয়। এরপর প্রাপ্তি সাপেক্ষে খামারীদের মাঝে জীবানুনাশক ঔষধ প্রদান করা হয়। তবে কেন্দ্রীয় ভেটেরিনারি হাসপাতাল থেকে কোনো প্রকার বায়োসিকিউরিটি ম্যানুয়েল প্রদান করা হয় না বলে বৈঠকে আরও জানানো হয়।
এতে আরও জানানো হয়, বর্তমানে দেশের নয়টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আগত শিক্ষার্থীদের কেন্দ্রীয় ভেটেরিনারি হাসপাতালে প্রাণিরোগের চিকিৎসায় ব্যবহারিক (ইন্টার্নশিপ) প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। এদিকে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের কাজে গতিশীলতা আনতে কর্মকর্তাদের দিয়ে ২০টি ভিজিলেন্স টিমও গঠন করা হয়েছে।
বৈঠকে সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদ সংরক্ষণ, মৎস্য আহরণ ও সামুদ্রিক ট্রলার লাইসেন্স প্রদানে যে সব কর্মকর্তা নিযুক্ত রয়েছেন, তাদেরকে মনিটরিংয়ের বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করেছে কমিটি। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে যতো দ্রুত সম্ভব মৎস্য উন্নয়ন প্রকল্পটি চূড়ান্ত অনুমোদনের বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ারও সুপারিশ করা হয়।
সভাপতি মীর শওকাত আলী বাদশার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটি সদস্য মৎস্য ও প্রাণি সম্পদমন্ত্রী মো. ছায়েদুল হক, প্রতিমন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ, মুহা. গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস, ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টু, খন্দকার আজিজুল হক আরজু, অ্যাড. মুহাম্মদ আলতাফ আলী ও সামছুন নাহার বেগম (এডভোকেট) অংশ নেন।
এছাড়া মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব, মহাপরিচালক, প্রানিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, মৎস্য অধিদপ্তরসহ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।