রবিবার ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২০শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

হাছান মাহমুদ ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে হতাশ

প্রকাশঃ ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬

ছাত্রদলের ৭৩৬ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেখে প্রচণ্ড হতাশ হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছেন, আমরা যখন ছাত্র রাজনীতি করতাম, তখন কেন্দ্রীয় কমিটি থাকত ৬০-৭০ জনের মতো। এই কমিটি দেখে আমি প্রচণ্ড হতাশ হয়েছি।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে আয়োজিত এক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন।

ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল নামের বেসরকারি একটি সংস্থা ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের জন্য এই প্রশিক্ষণ কর্মশালার আয়োজন করে।

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, সম্প্রতি ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। কমিটির আকার ৮০০ জনের কাছাকাছি। আমরা যখন ছাত্র রাজনীতি করতাম, তখন কেন্দ্রীয় কমিটি থাকত ৬০-৭০ জনের মতো। এখন এই কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক কি ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে হবে নাকি কোনো হল ভাড়া করতে হবে? প্রশ্ন রাখেন তিনি।

পত্রিকার উদ্বৃতি দিয়ে সাবেক বনমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা পত্রিকাতে দেখতে পেলাম, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটিতে শুধু ছাত্র নয়, ছাত্রদের বাবারাও স্থান পেয়েছে। আবার ছাত্রলীগের নেতারাও কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পেয়েছে। এই কমিটি নাকি গঠন করা হয়েছিল কোন্দল কমানোর জন্য। কিন্তু কমিটি গঠনের পর দেখলাম বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় আগের মতোই ভাঙচুর করা হয়েছে। ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়েছে। অর্থাৎ, এই ধরনের কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের মধ্য দিয়ে বিএনপির রাজনীতির চরম দৈন্যর বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। রাজনীতিকে এই চরম দৈন্য থেকে মুক্ত করা প্রয়োজন, প্রশিক্ষণ প্রয়োজন।’

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের ডেপুটি চিফ অব পার্টি কেটি ক্রোক। সমন্বয়ক ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপকমিটির সহসম্পাদক জেদ্দা পারভীন।