শুক্রবার ১৪ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে পৌষ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১১ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ

প্রকাশঃ ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬

নিজস্বপ্রতিবেদকঃ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বাসে হামলা করে ছাত্রীদের নির্যাতন ও রক্তাক্ত সন্ত্রাসী হামলা এবং প্রশাসনের নির্বাক ভূমিকার প্রতিবাদে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহসড়ক অবরোধ করে আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা।
সোমবার সকাল নয়টায় ক্যাম্পাসের কাঁঠাল তলায় জড়ো হন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন। তারা ক্যাম্পাসে টায়ার জ্বালিয়েও বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এর বেলা পৌনে ১১টার দিকে মহাসড়কের নন্দনপুর বিশ্বরোডে অবস’ান নেন শত শত শিক্ষার্থী।
এতে মহাসড়কের উভয় পাশ দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এদিকে, সড়ক অবরোধের পরপরই ঘটনাস’লে অবস’ান নিয়েছে পুলিশ। তারা শিক্ষার্থীদের থেকে কিছুটা দূরে অবস’ান নিয়ে পরিসি’তি পর্যবেক্ষণ করছেন।
আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বলেন, কুমিল্লা শহরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে সন্ত্রাসী হামলা ও ছাত্রীদের নির্যাতন করা হয়েছে। ছাত্রী নির্যাতনকারী ও সন্ত্রাসী হামলাকারীদের বির”দ্ধে আইন প্রশাসন কোন প্রকার নেয়নি। ঐ হামলায় আক্তার”জ্জামান নামে এক শিক্ষার্থীর তিনটি রগ কেটে যায়। এছাড়াও ২৫ জন আহত হন। রবিবার বিকাল পাঁচটায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস থেকে কুমিল্লা নগরীর পুলিশ লাইন অভিমুখে শিক্ষার্থী বহনকারী একটি বাস যা”িছল। নগরীর ঝাউতলায় সরস্বতী পূজা উপলক্ষে বিশাল গাড়ি বহরের একর‌্যালি যা”িছল। এ সময় র‌্যালি থেকে কিছু ছেলে বাসে অবস’ানরত ছাত্রীদের লক্ষ্য করে রঙ ছুড়লে ছাত্ররা প্রতিবাদ করেন। পরপরই র‌্যালি থেকে অর্ধশতাধিক লোক এসে লাঠি, রড ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে বাসে অবস’ানরত শিক্ষার্থীদের উপর হামলা করে। তারা ছাত্র-ছাত্রীদের বেদড়ক মারধর করে। ধারালো অস্ত্রের কোপে লোক প্রশান বিভাগের ৭ম ব্যাচের শিক্ষার্থী আক্তার”জ্জামানের ডান হতের কজ্বির তিনটি রগ কেটে যায়। তিনি এখন কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে ভর্তি রয়েছেন।
অবরোধের পরিসি’তি সম্পর্কে কোটবাড়ী থানার পরিদর্শক মাহমুদুর রহমান মোবাইল ফোনে জানান , পুলিশ আন্দোলকৃত শিক্ষার্থীদেরকে নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজ করছে।