মঙ্গলবার ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২২শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

সুপারিশ ছাড়া প্রকল্প পরিচালক নয়

প্রকাশঃ ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬

স্টাফ রিপোর্টার: অভিজ্ঞতা, যোগ্যতা ও দক্ষতা যাচাই ছাড়া প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ দেওয়ায় প্রকল্প বাস্তবায়ন বিলম্বিত হচ্ছে। অনভিজ্ঞ প্রকল্প পরিচালকের মাধ্যমে প্রকল্প প্রস্তাবনা তৈরি হচ্ছে অত্যন্ত দুর্বলভাবে।
তাই একটি কাঠামোর আওতায় উন্নয়ন প্রকল্পে পরিচালক নিয়োগের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য নীতিমালা জারি করেছে পরিকল্পনা কমিশন।
পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে একটি পরিপত্র জারি করে সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগে পাঠানো হয়েছে। পরিপত্রটি প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ সংক্রান্ত পূর্বে জারি করা নীতিমালা বা পরিপত্রের নির্দেশনাবলীর প্রযোজ্য অংশের প্রতিস্থাপন বলে গণ্য করতে বলা হয়েছে।
এতে বলা হয়েছে, যোগ্য প্রকল্প পরিচালকের অভাবে প্রকল্প গতিহীন হয়ে পড়ে। এ জন্য একটি কাঠামোর আওতায় উন্নয়ন প্রকল্পে পরিচালক নিয়োগের প্রক্রিয়া করা হয়েছে। যাতে একটি যোগ্যতার ভিত্তিতে তাদের প্রকল্পে নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।
প্রকল্প পরিচালক নিয়োগের নীতিমালা সর্ম্পকে পরিকল্পনা বিভাগের সচিব তারিক-উল-ইসলাম বলেন, প্রকল্প বাস্তবায়ন ঠিকমতো না হওয়ার অন্যতম মূল কারণ নিম্নমানের প্রকল্প প্রস্তাবনা। একটি প্রকল্প পাঁচ বছর ধরে বাস্তবায়নের কথা থাকলেও তৈরি করা হয় মাত্র এক মাসে। সঠিক যাচাই-বাছাই ছাড়া প্রকল্প প্রস্তাব তৈরি করা হয় বলে বাস্তবায়নে জটিলতা সৃষ্টি হয়। এজন্য যোগ্য প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে।
তিনি বলেন, নীতিমালা সংক্রান্ত পরিপত্রটি অবিলম্বে কার্যকর করার বিষয়েও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগ
নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।নীতিমালায় প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ চূড়ান্ত করার জন্য সাত সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই প্রকল্প পরিচালক সংক্রান্ত কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতেই সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বা বিভাগের মন্ত্রী বা প্রতিমন্ত্রী প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ চূড়ান্ত অনুমোদন করবেন।
নীতিমালায় বলা হয়েছে, উপযুক্ত কমিটির সুপারিশ ছাড়া কোনো প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ দেওয়া যাবে না। পদাধিকার বলে কোনো কর্মকর্তাকে প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ দেওয়া যাবে না। আর একজন কর্মকর্তাকে একটি মাত্র প্রকল্পের পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দিতে হবে। তবে বিশেষ প্রয়োজনে একজন কর্মকর্তাকে দুটো প্রকল্পের পরিচালক নিয়োগ করার বিষয়টি বিবেচনা করা যেতে পারে। সেক্ষেত্রে কমিটির সুপারিশ প্রয়োজন হবে।প্রকল্প পরিচালক নিয়োগের বিষয়ে গঠিত কমিটির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বা বিভাগের সিনিয়র সভাপতি। সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করবে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বা বিভাগের পরিকল্পনা অনুবিভাগের প্রধান বা অধিশাখা প্রদান বা শাখা প্রধান।
আর কমিটির সদস্য হিসেবে থাকবেন একজন করে পরিকল্পনা কমিশনের সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রতিনিধি, বাস্তবায়ন ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) সংশ্লিষ্ট সেক্টরের প্রতিনিধি, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি, অর্থ বিভাগের প্রতিনিধি, অর্থনৈতিক সর্ম্পক বিভাগের (ইআরডি) প্রতিনিধি এবং প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা প্রধান।
কমিটি প্রয়োজনে এক বা একাধিক সদস্য কো-অপ্ট করতে পারবে। তবে কমিটির ইআরডি প্রতিনিধি শুধুমাত্র বৈদেশিক সহায়তাপুষ্ট প্রকল্পের ক্ষেত্রে মতামত দিবে।
নীতিমালা অনুযায়ী, এখন থেকে যে কোনো প্রকল্প অনুমোদন পাওয়ার পর দ্রুততম সময়ের মধ্যে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বিভাগ প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ সংক্রান্ত কমিটির সভা আহ্বান করে ন্যূনতম সম্ভাব্য তিনজন প্রকল্প পরিচালকের বৃত্তান্ত উপস্থাপন করবে। সেখান থেকে কমিটির পর্যালোচনা সাপেক্ষে একজন প্রকল্প পরিচালক নির্বাচন করতে হবে। প্রকল্প পরিচালকের বৃত্তান্ত উপস্থাপন করার নিয়মাবলীও পরিপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে প্রকল্প বাস্তবায়নে যেসব কর্মকর্তার কর্মদক্ষতা সন্তোষজনক নয়, তাদের নাম প্রস্তাব করা যাবে না।কমিটি শিক্ষাগত যোগ্যতা, কর্ম অভিজ্ঞতা, প্রকল্প বাস্তবায়ন সংক্রান্ত অভিজ্ঞতা, প্রকিউরমেন্ট সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ ইত্যাদি বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নিবে।
প্রকল্পের ব্যয় ৫০ কোটি টাকার কম হলে প্রকল্প পরিচালক নিয়োগের জন্য কমিটির সাহায্য নেওয়া যেতে পারে। তবে ব্যয় ৫০ কোটির বেশি হলে অবশ্যই কমিটির মাধ্যমে প্রকল্প পরিচালক নির্বাচন করার কথা বলা হয়েছে।
নীতিমালায় বলা হয়েছে, প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার ছয় মাস পর্যন্ত যে সব কর্মকর্তার চাকরির মেয়াদ থাকবে না, তাদের প্রকল্প পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া যাবে না।
জনস্বার্থে একান্ত অপরিহার্য না হলে প্রকল্প বাস্তবায়নকালে সংশ্লিষ্ট প্রকল্পে নিয়োজিত প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত, অভিজ্ঞ কর্মকর্তা বা প্রকল্প পরিচালককে অন্যত্র বদলী পরিহার করতে বলা হয়েছে। তবে পদোন্নতি অথবা শাস্তিপ্রাপ্ত কর্মকর্তার ক্ষেত্রে এ বিধান প্রযোজ্য হবে না।
ক্রয় সংক্রান্ত বিধানাবলী ও প্রকল্প ব্যবস্থাপনা বিষয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও প্রকল্প প্রণয়ন, প্রক্রিয়াকরণ ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজে অভিজ্ঞ (৫ম গ্রেডের নীচে নয়) কর্মকর্তাকে প্রকল্প পরিচালক নিয়োগে অগ্রাধিকার দিতে বলা হয়েছে।প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ দিতে হবে প্রকল্প অনুমোদনের পর। তবে কারিগরি সহায়তা প্রকল্পের ক্ষেত্রে উন্নয়ন সহযোগী কর্তৃক প্রকল্প অনুমোদনের আগে প্রকল্প পরিচালক নিয়োগের শর্ত প্রদান করা হলে কমিটি এ পরিপত্রে বর্ণিত বিধানাবলী প্রতিপালন করে প্রকল্প পরিচালক নিয়োগের সুপারিশ করবে।
প্রকল্প পরিচালক নিয়োগের ক্ষেত্রে অবশ্যই বাস্তবায়নকারী সংস্থার কর্মকর্তাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে।
পরিপত্র জারির আগে থেকে যারা একাধিক প্রকল্পে পরিচালক হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত হয়েছেন, তাদের বিষয়ে পুনরায় সিদ্ধান্ত নিতে বলা হয়েছে। এক্ষেত্রে খুব জরুরি না হলে একটি প্রকল্পের বেশি প্রকল্পের দায়িত্বে থাকা যাবে না।
নীতিমালা অনুযায়ী, এখন থেকে অতিরিক্ত দায়িত্ব প্রদান করে প্রকল্প পরিচাক নিয়োগ দেওয়া যাবে না। তবে স্বল্পকালীন ব্যবস্থা হিসেবে নিয়মিত প্রকল্প পরিচালক নিয়োগের আগে ন্যূনতম সময়ের জন্য অতিরিক্ত দায়িত্ব প্রদান করা যেতে পারে।
পরিকল্পনা কমিশন সূত্রে জানা গেছে, প্রকল্প বাস্তবায়নে গতি ফেরানোর পরিকল্পনার অংশ হিসেবে গত বছরের আগস্টে একটি পরিচালক পুল গঠনের ব্যাপারে একটি বৈঠক হয়। তাতে পর্যালোচনায় বেরিয়ে আসে, প্রকল্প অনুমোদনের পর যেসব কারণে প্রকল্পের বাস্তবায়ন অগ্রগতি মন্থর হয়ে পড়ে তার অন্যতম কারণ হলো দক্ষ ও অভিজ্ঞ পরিচালকের অভাব। উন্নয়ন প্রকল্পগুলো সুষ্ঠু ও সময়মতো বাস্তবায়নের জন্য দক্ষ ও অভিজ্ঞ পরিচালক নিয়োগে পুল করা উচিত।
পরিকল্পনা কমিশন থেকে প্রকল্প পরিচালকদের তথ্যাদি চেয়ে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কাছে দু’দফা চিঠি পাঠিয়েও আশানুরূপ সাড়া পাওয়া যায়নি। পরে বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন (আইএমইডি) বিভাগ নিজের উদ্যোগে সব সেক্টরের মাধ্যমে প্রকল্প পরিচালকদের তথ্য সংগ্রহ করে। বিভাগটি ২০১৩-১৪ অর্থবছরের প্রকল্প পরিচালকদের তালিকা তৈরি করে।
কমিশনের ওই সভায় প্রকল্প পরিচালক নিয়োগসংক্রান্ত একটি নীতিমালা তৈরির জন্য আইএমইডি বিভাগের প্রধানকে আহ্বায়ক করে একটি কমিটি গঠন করা হয়। তারা একটি খসড়া নীতিমালা তৈরি করে। পরবর্তীতে পরিকল্পনা বিভাগ তা চূড়ান্ত করে পরিপত্র জারি করে।
এর আগে এক অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, উন্নয়ন প্রকল্পের পরিচালক নিয়োগ সরাসরি হবে নাএখন থেকে ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমেই প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ দেয়া হবে।
এছাড়া সরকারের বেশ কয়েকজন সিনিয়র সচিবের অভিমত হলো, শুধু সরকারি কর্মকর্তাদেরই প্রকল্প পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দিতে হবে এর কোনো মানে নেই। বিশ্বায়নের এ যুগে আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ দেয়া যায়। প্রকল্প পরিচালক নিয়োগে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উচিত পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে পরামর্শ করা। অপর দিকে এনএডিপির উচিত প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রকল্প পরিচালক তৈরি করা।