বৃহস্পতিবার ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৪শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত জাতীয় পার্টি

প্রকাশঃ ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদক,: জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ বলেছেন, তাকে বলা হতো স্বৈরাচার। এখন কোন স্বৈরাচার দেশ পরিচালনা করে।তিনি বলেন, ‘আমি কোনো মানুষের ক্ষতি করি নাই, কোনো মানুষ হত্যা করি নাই, আমার সময় কোনো মানুষ গুম হয় নাই। আমার সময় খবরের কাগজ মুক্তভাবে লিখেছে, আমার বিরুদ্ধে লিখেছে। আমি কোনো অ্যাকশন গ্রহণ করি নাই। এখন কেউ লিখতে পারে না। কেউ বলতে পারে না। সবকিছু এখন বন্ধ সব। বদ্ধ কারাগারে বাস করছি। মুক্ত হতে হবে একদিন। নির্বাচনের মাধ্যমে মুক্ত হতে হবে আমাদের। সেই জন্য আমরা প্রস্তুত।’তিনি শনিবার বিকেলে গাজীপুর মহানগর জাতীয় পার্টির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।গাজীপুর জেলা শহরের বঙ্গতাজ উদ্দিন অডিটোরিয়ামে জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান ও গাজীপুর মহানগর জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক আব্দুস সাত্তার মিয়ার সভাপতিত্বে সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য এস এম ফয়সাল চিশতী, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাড. রেজাউল ইসলাম ভুইয়া, যুগ্ম-মহাসচিব আরিফ খান, বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল, নুরুল ইসলাম নুরু প্রমুখ।
333-153এরশাদ বলেন, ‘যে দলটি আমাকে জেলে পাঠিয়েছিলেন, তাদের অস্তিত্ব আজ টলটলমান। অস্তিত্ব আছে মনে হয় না। অস্বিত্ব শুধু টিভিতে একটা বয়ান দেয়। এর বাইরে কিছু নাই। শুনেছি তারা কাউন্সিল মিটিং করবে। আজ পর্যন্ত তাদের বাইরে কোথাও যেতে দেখি নাই। কাউন্সিল মিটিং ঘরে বসে করবেন। আমরা কিন্তু ঘরে বসে করি নাই। প্রত্যেক জেলায় যাচ্ছি কাউন্সিল করছি, কমিটি গঠন করছি।’এরশাদ বলেন, ‘অনেকে বলে জাতীয় পার্টি মধ্যে বিভক্ত আছে। বিরোধী দলীয় নেত্রী আরেক কথা বলেন। বিরোধী দলীয় নেত্রী আমাদের বিরুদ্ধে নন। আমি নির্বাচন করি নাই, উনি নির্বাচন করেছিলেন। সেই এমপিরা উনার সাথে এখন আছেন। যদি নির্বাচন হয়, জাতীয় পার্টির সমস্ত নেতাকর্মীরা আমার সঙ্গে আসবেন।’সম্মেলনে আব্দুস সাত্তার মিয়া
কে সভাপতি ও জয়নাল আবেদীনকে সাধারণ সম্পাদক করে গাজীপুর মহানগর জাতীয় পার্টির কমিটি ঘোষণা দেওয়া হয়।