বৃহস্পতিবার ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৪শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া দুই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষ নেয়ার অভিযোগ

প্রকাশঃ ০৬ মার্চ, ২০১৬

Policeব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার দুই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষ নেয়ার অভিযোগ তুলেছেন লাকী ইয়াসমিন নামে ভুক্তভোগী এক নারী।

রোববার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতে এ অভিযোগ দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন লাকী ইয়াসমিন।

আদালত মামলাটি নথিভুক্ত করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

অভিযুক্ত কর্মকর্তা হলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রহিম সরকার ও মাসুদ।

মামলায় লাকী ইয়াসমিন অভিযোগ করেন, একটি মিথ্যা অভিযোগের মামলায় তার স্বামী ও প্রতিবন্ধী সন্তানের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়। গত ২৫ জানুয়ারি রাতে ওই দুই পুলিশ কর্মকর্তার নেতৃত্বে একদল পুলিশ বাদী লাকী ইয়াসমিনের বাড়ি ঘিরে ফেলে। এ সময় স্বামী ফায়েজ আহমেদ ও প্রতিবন্ধী সন্তান দীপুকে ধরে নিয়ে আসে।

পরবর্তীতে এসআই আব্দুর রহিম সরকার বাদীর মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করে ৩০ হাজার টাকা দাবি করেন। গত ২৬ জানুয়ারি দুপুরে এসআই আব্দুর রহিমকে ১০ হাজার টাকা ঘুষ দেয়া হয়। এসআই মো. মাসুদ এসব ঘটনা দেখেন ও ঘুষ গ্রহণে এসআই আব্দুর রহিমকে প্ররোচনা দেন।

এ বিষয়ে জানতে এসআই আব্দুর রহিম ও মাসুদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাদের মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঈনুর রহমান বাংলামেইলকে জানান, এটি আসলে কোনো মামলা নয়। একটি অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে আদালতে দেয়া হয়েছে। আদালত মামলাটি নথিভুক্ত করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পিবিআইকে নির্দেশ দিয়েছেন।

ওসি মঈনুর আরো বলেন, এটি আসলে পুলিশের বিরুদ্ধে একটি অপপ্রচার। পুলিশ প্রেপ্তারি পরোয়ানার বলে অভিযোগকারীর স্বামী ও সন্তানকে আদালতে সোপর্দ করে। এখানে তাদের ছেড়ে না দেয়ায় তিনি আদালতে অভিযোগ করেছেন