সোমবার ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

পুরুষ নির্যাতন প্রতিরোধেও আইন করা লাগতে পারে

প্রকাশঃ ০৮ মার্চ, ২০১৬

ঢাকা: নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ আইনের মতো ভবিষ্যতে পুরুষ নির্যাতন প্রতিরোধ আইনও করা লাগতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘ভবিষ্যতে হয়তো সেদিন আসতে পারে। দেখা যাবে আমাদের হয়তো ওরকম আইনও (পুরুষ নির্যাতন প্রতিরোধ আইন) করতে হচ্ছে’।

মঙ্গলবার (০৮ মার্চ) সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, একটা মজার কথা বলি, পার্লামেন্টে আমি প্রশ্নোত্তর পর্বে উত্তর দিয়ে থাকি। সেখানে একজন সংসদ সদস্য আমাকে জিজ্ঞেস করলেন ভবিষ্যতে পুরুষ নির্যাতন প্রতিরোধ আইন করা হবে কিনা?’

তিনি বলেন, ‘আমি আর কি বলবো ওনাকে বললাম আপনার যে এত কষ্ট তা তো জানতাম না। আপনি বলেন, আমরা দেখবো, কিভাবে আপনার সমস্যা সমাধান করা যায়’।

‘যাই হোক ভবিষ্যতে হয়তো সেদিন আসতে পারে। দেখা যাবে আমাদের হয়তো ওরকম আইনও (পুরুষ নির্যাতন প্রতিরোধ আইন) করতে হচ্ছে।’

শেখ হাসিনা বলেন, মেয়েরাতো খুব বেশি নির্যাতন করে না, নির্যাতিত হয়।

সংসারকে সুখী করতে মেয়েদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বোনদের বলবো, সংসার সুখের হয় রমনীর গুণে। এই কথাটা মনে রাখতে হবে।’

‘একটা সংসারকে সুন্দর করে রাখতে মেয়েদের অনেক দায়িত্ব থাকে, সে দায়িত্ব তারা নিশ্চয়ই পালন করবে। কথায় তো আছে, যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে।’

গত বছর জাতীয় সংসদের এক অধিবেশনে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য হাজি মোহাম্মদ সেলিম পুরুষ নির্যাতন প্রতিরোধ আইন করার দাবি জানান।

হাজি সেলিম বলেছিলেন, বর্তমানে দেশে শুধু নারী নির্যাতন প্রতিরোধে আইন থাকলেও সমাজে বহু পুরুষ নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। কোনো কোনো ক্ষেত্রে নারীও হয় ভয়ংকর। আমি চাই-পুরুষ নির্যাতনের বিষয়ে একটা আইন হোক।

তিনি আরো বলেছিলেন, আমি বহু আগে থেকে বিচার-সালিশ করি। স্বামী-স্ত্রীর বিচার করতে করতে আমি দেখেছি- ২০টা বিচার এলে এর মধ্যে ১৫টি নারীর। …স্বামীকে উচিত শিক্ষা দিতে গিয়ে তারা থানায় যায়; তা করতে গিয়ে শ্বশুর-শাশুড়ি, দেবর, ননদ, ভাসুর সবাইকে নারী নির্যাতন মামলা দেয়। আর পুলিশ সঙ্গে সঙ্গে হানা দেয়; সবাই বাড়ি ছাড়ে। ওই বাড়ি তছনছ হয়ে যায়।

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত আর্ন্তজাতিক নারী দিবসের অনুষ্ঠানে মহিলা ‍ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকির সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সচিব নাছিমা বেগম, ইউএন উইমেন বাংলাদেশের প্রতিনিধি ক্রিস্টিন হান্টার।