শনিবার ২৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৬শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

অবশেষে ৬ মাদরাসাছাত্র উদ্ধার, শিক্ষক আটক

প্রকাশঃ ০৯ মার্চ, ২০১৬

নিজস্বপ্রতিবেদকঃ: লক্ষ্মীপুরে অপহৃত সেই ৬ মাদরাসা শিক্ষার্থীকে চাঁদপুর থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় ওই অপহরণকারী শিক্ষক হোসাইন ওরফে জসিমকে আটক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৮ মার্চ) সন্ধ্যায় চাঁদপুর জেলার মতলব থানার গোবিন্দপুর এলাকার একটি হাফিজিয়া মাদরাসা থেকে তাদের উদ্ধার ও শিক্ষককে আটক করা হয়।

উদ্ধারকৃত ছাত্ররা হলো- রাসেল (১২), আবদুল্যাহ (১০), জোবায়ের (১০), মুরাদ (১০), রবিন (১০) ও মনির হোসেন (১০)। তারা একই গ্রামের রহমানিয়া তালিমুল কুরআন কাওমি মাদরাসার হেফজখানার ছাত্র। আটক শিক্ষক হোসাইন নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট এলাকায়। তিনি লক্ষ্মীপুরের দিঘলী ইউনিয়নের শান্তিরহাট এলাকায় শ্বশুর বাড়িতে থাকতেন।

লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) পুষ্প বিহার চাকমা উদ্ধারের বিষয় নিশ্চিত করে সোনারবাংলা৭১.কমকে 2016_03_09_08_26_23_JWigyW6eQ1T8i0LwMs2Q60uaQXggPX_originalজানান, রোববার রাত ২টার দিকে শিক্ষক হোসাইন ৬ শিক্ষার্থীকে নিয়ে পালিয়ে যান। এ ঘটনায় মাদরাসার অপর শিক্ষক মনিরুল ইসলাম থানায় জিডি করেন। নিখোঁজ শিক্ষার্থীরা কুমিল্লার একটি মাদরাসায় রয়েছে বলে সোমবার দুপুরে অভিযুক্ত শিক্ষকের মোবাইল ফোন থেকে কল করে জানানো হয়। এরপর থেকে ওই ফোনটি বন্ধ ছিল। পরে ওই মোবাইল ফোন ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে চাঁদপুর জেলার মতলব থানার গোবিন্দপুর হাফিজিয়া মাদরাসা থেকে ছয়ছাত্রকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় ঘটনায় জড়িত শিক্ষক হোসাইন ওরফে জসিমকে আটক করা হয়।

উল্লেখ্য, চাকরিচ্যুতির সিদ্ধান্তে ক্ষিপ্ত হয়ে রোববার (৬ মার্চ) রাত ২টার দিকে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দিঘলী ইউনিয়নের দূর্গাপুর গ্রামের রহমানিয়া তালিমুল কুরআন কাওমি মাদরাসা থেকে ৬ শিক্ষার্থীকে নিয়ে শিক্ষক হোসাইন পালিয়ে যান। এরপর সোমবার চন্দ্রগঞ্জ থানায় অভিযোগ হলে পুলিশ তাদের উদ্ধারে অভিযান চালায়।