মঙ্গলবার ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২২শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

নির্বাচনী সংঘর্ষে নারীসহ গুলিবিদ্ধ ৮

প্রকাশঃ ১১ মার্চ, ২০১৬

জেলা প্রতিনিধিঃ2015_09_15_10_33_11_VU8V6E5FVSvH3pUSRFzKA5fra7YOby_original জেলার মোল্লাহাটে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দু’গ্রামবাসীর মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ ও গোলাগুলিতে উভয়পক্ষের নারীসহ ৪০ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে আটজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

শুক্রবার সকালে মোল্লাহাট উপজেলার উদয়পুর ইউনিয়নের উদয়পুর গ্রামের ইউপি সদস্য কামরুল ও আস্তাইল গ্রামের ইউপি সদস্য মকুর সমর্থকদের সঙ্গে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহত কয়েকজন হলেন- সফিকুল ইসলাম (২৫), ফারুক মোল্লা (৫০), মরিয়ম বেগম (৪০), রবিউল মোল্লা (৪০), সফিক মোল্লা (২৬), আরমান শরীফ (৩২), সাহেদ শরীফ (৬৫), মাহাবুব (৩২), সাদ্দাম (২৮), মিরাজ (৩২), আকবর হোসেন (৩০), এমদাদ মোল্লা (৪০), মিরাজ মোল্লা (৪৫), হাফসি বেগম (৩০), আকরাম শেখ (২০), আজাদ মোল্লা (৩২), ইলাহি বিশ্বাস (৩৮), আবুল কালাম আজাদ (৫২), বাবর মোল্লা (২৮), নান্নু মোল্লা (২৮), জালাল মোল্লা (২০), সুখ মিয়া (২৭), নাদের মোল্লা (৩০), মিরাজ শেখ (৩৬), আবু সিদ্দিক (২৫), জামাল শরীফ (৩৫), মিন্টু মুন্সি (৩৫), আব্দুল গাজী (১৬), জাকারিয়া (২৮), টুকু শরীফ (৪৬), লিয়াকত শরীফ (৩৮), সুরমান খান (৫৮) ও আবজাল মোল্লা (৪৭)।

মোল্লাহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আ ন ম খায়রুল আনাম বলেন, ‘মোল্লাহাট উপজেলার উদয়পুর ইউনিয়নের উদয়পুর গ্রামের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য কামরুল ও আস্তাইল গ্রামের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মকুর মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে পুরানো বিরোধ রয়েছে। সেই বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষ কামরুল মোল্লার চাচাতো ভাই রইস মোল্লা খুলনা থেকে একটি মেয়েকে উদয়পুর গ্রামে নিয়ে আসলে মকুর লোকজন তা ঠিক পেয়ে তাদের হাতে নাতে ধরে ফেলে।

পরে মকুর লোকজন মেয়েটিকে পুলিশে দেয়ার কথা বললে ইউপি সদস্য কামরুল ও মকুর সমর্থকরা লাঠিসোটা ও ইটপাটকেল নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ২৫ জন আহত হন। কোনো এক পক্ষের শর্টগানের ছোড়া ছররা গুলিতে অন্তত আটজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় মোল্লাহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষের পর সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের সনাক্ত করে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলেছে। খুলনা থেকে আসা মেয়েটিকে উদ্ধার করে পুলিশি হেফাজতে রাখা হয়েছে।

মোল্লাহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সৈয়দ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘সংঘর্ষ ও গুলিতে রক্তাক্ত জখম অন্তত ৪০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে অন্তত আটজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এদের মাথায়, বুকে ও পিঠে ছররা গুলিবিদ্ধ হয়ে রয়েছে। গুলিবিদ্ধ আটজনসহ ১৩ জনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে
পাঠানো হয়েছে।