মঙ্গলবার ২৫শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২২শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

রাজধানীতে ২৯ মার্চ থেকে ফুল উৎসব

প্রকাশঃ ১২ মার্চ, ২০১৬

দেশি ফুলের বৈচিত্র্যের সাথে মানুষের পরিচয় বাড়ানো, ফুলের ব্যবহার বৃদ্ধি এবং ফুলের দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বাজার সম্পসারণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটি (বিএফএস) আগামী ২৯ মার্চ থেকে আয়োজন করছে দুইব্যাপী বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার ফেস্ট-২০১৬।

ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটি (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মলেন এ তথ্য জানিয়েছে সংগঠনটি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের সভাপতি মো. আব্দুর রহিম বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশে ফুল অর্থকরী ফসল হিসাবে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন ও বিপণন হচ্ছে। ১৯৮৩ সাল থেকে ৩০ দশক জমিতে রজনীগন্ধা ফুল চাষের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে বাণিজ্যিকভাবে ফুল উৎপাদন শুরু হয়। দেশে বর্তমানে ২৩টি জেলার ১৫ থেকে ১৬ হাজার কৃষক সরাসরি ফুল উৎপাদনের সাথে জড়িত। হাজার হাজার শিক্ষিত বেকার ফুল চাষ ও ফুল ব্যবসা করে দূর করেছে বেকারত্ব।’

বছরে প্রায় ৭শ-৮শ কোটি টাকার ফুল আমাদের দেশে উৎপাদিত হচ্ছে। দেশের উৎপাদিত ফুল দেশের চাহিদা মিটিয়ে কিছু কিছু বিদেশেও যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘সরকারি, বেসরকারি জাতীয় অনুষ্ঠানসহ বিয়ে, জন্মদিন ও বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে ফুলের ব্যবহার ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। দেশের মানুষ এখন ফুল প্রচুর ব্যবহার করছে সে কারনে আমাদের দেশের ফুল চাষ, ফুলের বাজার দিন দিন সম্প্রসারিত হচ্ছে। তবে ফুলের গুনগত মান বজায় রাখা এবং বাছাইকৃত প্যাকেজিং ফুল ক্রয় বিক্রয়ের প্রচলন নাই বললেই চলে। তাই ফুল সেক্টরকে টেকসই, শক্তিশালীকরণ ও রপ্তানিযোগ্য করতে হলে আন্তর্জাতিক বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় আমাদের দেশের উৎপাদিত ফুলও আধুনিক প্রযুক্তির প্রয়োগের মাধ্যমে উৎপাদক, ব্যবসায়ী ও ভোক্তা সকলেরই মানসম্মত বাছাইকৃত প্যাকেজিং ফুল ব্যবহারের প্রতি অভ্যাস গড়ে তোলার প্রয়োজন আছে। একারনেই বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার ফেষ্ট ২০১৬ এর আয়োজন করা হয়েছে।

মো. আব্দুর রহিম বলেন, ‘আগামী ২৯ থেকে ৩০ শে মার্চ দুই দিনব্যাপী এই মেলার আয়োজন করা হয়েছে বাংলাদেশ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট (খামারবাড়িতে)। এই মেলায় ২০ ফুল ব্যবসায়ী ও ফুল সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে, থাকবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও।’

সংবাদ সম্মেলনে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন দেশি ফুল ডটকমের সিইও বুশরা আলম, উইনমিল অ্যাডভ্যারটাইজমেন্টের এমডি রিয়াজউদ্দিন মোশাররফ প্রমুখ।
প্রকাশ12.03.20162016_03_12_10_13_09_zgJ45mk4eDJOl1iSHPSn6dE7UfpSuL_original