শনিবার ২৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৬শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

স্বাক্ষর জাল করে খোলা হয় অ্যাকাউন্ট, দাবি ব্যবসায়ীর

প্রকাশঃ ১২ মার্চ, ২০১৬

ঢাকা: বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে পাচারে ব্যবহৃত অ্যাকাউন্টগুলোর মধ্যে একটিকে ভুয়া দাবি করেছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি। ৮১ মিলিয়ন ডলার চুরিতে তার কোনো সম্পৃক্ততা নেই বলে দাবি করেছেন তিনি। তিনি বলছেন, তার নামে জালিয়াতি করে ওই অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছিল।

শনিবার ফিলিপাইনের পত্রিকা ইনকোয়ারারের এক খবরে দেশটির ব্যবসায়ী উইলিয়াম গো’র এ দাবির কথা তুলে ধরা হয়েছে।

এর আগে ফিলিপাইনের অ্যান্টি মানিলন্ডারিং কাউন্সিল বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের ৮১ মিলিয়ন ডলার চুরির জন্য সন্দেহের তালিকায় আনে দেশটির ছয়জনকে। যাদের মধ্যে উইলিয়াম গো ছাড়াও আছেন মাইকেল ক্রুজ, জেসি ক্রিস্টোফার, আলফ্রেড ভারগারা, এনরিকো ভাসকুইজ এবং কিম অং।
সংবাদ সম্মেলনে উইলিয়াম গো’র আইনজীবী
2016_03_12_12_53_37_ZstTPNdLKm2LSaasyvwyLf3IR6x0fq_original
তবে পত্রিকাটি বলেছে, এক সংবাদ সম্মেলনে উইলিয়ামের আইনজীবী রেমন দাবি করেন, আরসিবিসির জুপিটার স্ট্রিট ব্রাঞ্চে যে অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ ভুয়া। যেখানে গো’র স্বাক্ষর জালিয়াতি করা হয়েছে।

নিরাপত্তার কারণে গো’কে সংবাদ সম্মেলনে হাজির করা হয়নি বলেও জানানো হয়।

আরসিবিসি ব্যাংকের জুপিটার শাখায় উল্লিখিত ছয়জনের মধ্য থেকে ৫ জনের নামে ৫টি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা হয়। যে হিসাবগুলোতে ৮১ মিলিয়ন ডলারের বৈদেশিক মুদ্রা স্থানান্তরিত হয়েছে। যা বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের চুরি যাওয়া টাকা।

এদিকে গতকাল শুক্রবার ওই ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট শাখার ব্যবস্থাপককে জাপান যাওয়ার পথে ম্যানিলা এয়াপোর্টে আটকে দেয়া হয়। তিনি পালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ করা হচ্ছে। তবে তিনি তা সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন। আগামী মঙ্গলবার দেশটির সিনেটে এই মানিলন্ডারিংয়ে বিষয়ে শুনানিতে তাকে হাজির থাকতে বলা হয়েছে।