সোমবার ১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৪ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

আসামি বাইরে, জেল খাটলেন অন্যজন

প্রকাশঃ ২০ মার্চ, ২০১৬

নিজস্বপ্রতিবেদক=2015_07_08_08_39_32_RPyonvAdgKm0cnfeGTZL2J5b4v1kFN_original একই নাম হওয়ায় রাজশাহীর বাঘায় পুলিশের ভুলে দুলাল নামে এক ব্যবসায়ী বিনাঅপরাধে সাজাভোগ করেছেন।

বৃহস্পতিবার জামিনে মুক্ত হয়ে শনিবার দুপুরে স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে সাজাভোগ করা নিরাপরাধ দুলাল এমন অভিযোগ করেন।

দুলাল হোসেন উপজেলার মিলিক বাঘা গ্রামের আমির উদ্দিন সরকারের ছেলে। তিনি উপজেলা সদরের ব্যবসা করেন।

দুলাল অভিযোগ করেন, গত ১২ মার্চ বিকেলে বাঘা থানা পুলিশ ওয়ারেন্ট আছে বলে নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক গ্রেপ্তার করে। এরপর থানায় এনে কোনো কথা বলার সুযোগ না দিয়ে তাকে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেয়। ঘটনার একদিন পর জামিনে মুক্ত হন তিনি। পরে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, যে মামলায় তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে তিনি ওই মামলার আসামিই নন। তাকে নারী নির্যাতনের মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। ওই মামলার বাদীর নাম লতিফা খাতুন।

দুলাল হোসেন সাংবাদিক এবং বাজার বণিক সমিতির নেতাদের কাছে হাজত থেকে এসে বাঘা থানা পুলিশের বিরুদ্ধে তাকে হয়রানি করাসহ আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করার অভিযোগ করেন। একইসঙ্গে বিষয়টি তদন্ত করে পুলিশের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণের দাবিও জানান তিনি।

এ বিষয়ে লতিফা খাতুনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমার অভিযোগের ভিত্তিতে যে দুলাল হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে আমি তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ করিনি। আমি অভিযোগ করেছি আমার স্বামীর বিরুদ্ধে। তার নামও দুলাল হোসেন। তার বাড়ি উপজেলার চকনারায়ণপুর গ্রামে।’

এ ব্যাপারে বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী মাহমুদ জানান, এ বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। যদি সত্যিই এমনটি হয়েই থাকে তাহলে সেটা অনাকাঙ্খিত ভুল। গ্রেপ্তারকৃত দুলাল হোসেন থানায় আসার পর যদি বিষয়টা জানাতেন তাহলে হয়তো এমনটি হতো না।