শুক্রবার ২৮শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৫শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পাগলা কুকুরের কামড়ে নারী শিশুসহ শতাধিক আহত

প্রকাশঃ ১৪ জানুয়ারি, ২০২২

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পাগলা কুকুরের কামড়ে শতাধিক নারী, শিশুসহ শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন। গত বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শহরের কয়েকটি মহল্লায় ঘুরে ঘরে কুকুরটি মানুষকে কামড়ায়।

উত্তেজিত লোকজন দুপুরে পাগলা কুকুরটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলে। বিকেল ৪টা পর্যন্ত আহতদের মধ্যে ১০০জন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে ভ্যাকসিন নিয়েছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বুধবার সকালে একটি পাগলা কুকুর পৌর এলাকার নয়নপুর, পুনিয়াউট, মধ্যপাড়া, পৈরতলা বাসষ্ট্যান্ড, কাজীপাড়া, সরকারপাড়া, ছয়বাড়িয়াসহ কয়েকটি মহল্লায় ঘুরে ঘুরে যাকে সামনে পেয়েছে তাকেই কামড়ায়।

কুকুরের কামড়ে গাজীউর রহমান-(৭০), হনুফা- (৮০), শফিক-(৫৮), সিয়াম-(১১), মিম আক্তার- (৭), আবির-(১৬), মোহন মিয়া-(২২), ধন মিয়া (৬৫), হামিদ মিয়া-(৯), সানিতা বেগম-(৪), তানিয়া বেগম-(২০), সাহেদ মিয়া-(৪৮), জাহাঙ্গির মিয়া- (৪০), রবিউল হোসেন-(৮), ইমরান মিয়া-(১২), আকাশ মিয়া-(১৫), পাপিয়া বেগম- (৩৩), হোসনা বেগম-(২৫), তাহমিনা বেগম-(১৯) সহ শতাধিক লোক আহত হয়।

কুকুরটি বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় ঢুকে মানুষকে কামড়াতে কামড়াতে এক পর্যায়ে ছয়বাড়িয়া গ্রামে ঢুকে কয়েকজনকে কামড়ালো গ্রামবাসী কুকুরটিকে পিটিয়ে হত্যা করে।

কুকুরের কামড় খেয়ে আহতরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে আসলে তাদেরকে ভ্যাকসিন দেয়া হয়। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ১০০ জন হাসপাতালে ভ্যাকসিন নিয়েছেন।

কুকুরের কামড়ে আহত মোহন মিয়া বলেন, কুকুরটি কাজীপাড়া এলাকায় ঘুরে ঘুরে পথচারীদের কামড়ায়। রাস্তায় যাকে পেয়েছে তাকেই কামরিয়েছে। পৈরতলা বাসষ্ট্যান্ডে গিয়ে তাকে কামড়ায়।

কুকুরের কামড়ে আহত হনুফা বেগম বলেন, সকাল বেলা শহরের দাতিয়ারা এলাকায় কুকুরটি এসে তাকে কামড়ায়।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ এমরানুল ইসলাম বলেন, বুধবার সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত পাগলা কুকুরটি শহরের বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় ঘুরে ঘুরে শতাধিক মানুষকে কামড়ায়। পরে ছয়বাড়িয়া গ্রামের উত্তেজিত মানুষ কুকুরটিকে পিটিয়ে মেরে ফেলে। তিনি বলেন, আহতরা হাসপাতাল থেকে ভ্যাকসিন নিয়েছেন।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ ফাইজুর রহমান ফয়েজ বলেছেন, বিকেল ৪টা পর্যন্ত হাসপাতালের কুকুরের কামড়ে আহত ১০০ জনকে ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে। আরো ২০/২৫জন বাকী রয়েছেন। তাদেরকে বৃহস্পতিবার সকালে ভ্যাকসিন দেয়া হবে।

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডাঃ মোহাম্মদ একরামুল্লাহ বলেন, ভয়ের কোন কারন নেই। হাসপাতালে পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন আছে। সবাইকে ভ্যাকসিন দেয়া হবে।